TO-Nar-01-800px
Narrative

স্বপ্ন আর সত্যি

 
 

স্বপ্ন মানুষকে অনেক দূর নিয়ে যেতে পারে, তাই মানুষ স্বপ্ন দেখতে ভালোবাসে। আমিও ভালোবাসি, কারণ আমার স্বপ্ন আজ সত্যের অনেক কাছাকাছি। ছোটবেলা থেকেই আমি কার্টুন দেখতে পছন্দ করতাম। বিশ্বাসও করতাম, ভাবতেই ভালো লাগতো যে কুকুর, বিড়াল, ইঁদুর সব সময় ঝগড়া করে (Tom and Jerry), হাতি আকাশে উড়তে পারে (Dumbo), হরিণ কথা বলতে পারে (Bambi)। এরপর একটু বড় হলাম– Superman, Spider-Man, He-Man and the Masters of the Universe, Thundercats দেখা শুরু করলাম। শুরু হল নতুন করে আবার স্বপ্ন দেখা। পিঠে মায়ের লাল ওড়না লাগিয়ে Superman, হাতে সুতার গোল্লা লাগিয়ে Spider-Man, হাতে ক্রিকেটের স্টাম্প নিয়ে He-Man, Thundercats হওয়ার চেষ্টা করতাম। এরপর যখন Cartoon Network এ Dragon Ball Z দেখানো শুরু করল, শুরু হল আমার জীবনের এক নতুন অধ্যায়। সম্পূর্ণ এক নতুন পৃথিবী আমার সামনে খুলে গেল, আবার এক স্বপ্নের জগতে বাস করতে শুরু করলাম। শীতকালে ধোঁয়া ওঠা অনেক গরম পানি দিয়ে গোসল করে আয়নার সামনে দাঁড়াতাম যাতে দেখতে পারি শরীর থেকে ধোঁয়া উঠছে, নিজেকে Dragon Ball Z এর নায়ক Son Gokuu বলে মনে হতো…কিন্তু আফসোস, এটা পুরোটা না দেখিয়ে শুধু পুনঃপ্রচার করত। এরপর দেখলাম AXN এ Samurai X (Rurouni Kenshin: Meiji Kenkaku Romantan), Flame of Recca (Rekka no Honoo), Shadow Skill, Ninkuu, Power Stone, Fushigi Yuugi, এবং আরো অনেক! আমি পুরোপুরি হারিয়ে গেলাম এই দুনিয়ায়। তখনো জানতাম না যে এগুলোকে বলা হয় আনিমে। আমি তখন Himura Kenshin হওয়ার স্বপ্ন দেখি, হাতে Hanabishi Rekka’র ড্রাগনের ছবিটা আঁকি, Fusuke’র মতো দ্রুত দৌড়ানোর চেষ্টা করি। আরেকটু বড় হলাম, খোঁজ পেলাম Animax চ্যানেলের, স্বপ্ন আর সত্যি একাকার হয়ে গেল!

প্রবেশ করলাম এক নতুন ভুবনে। একে একে দেখা পেলাম আমারই মতো আনিমে প্রেমিকদের। শুরু করলাম আনিমে সংগ্রহ করা, আমার প্রথম সংগ্রহ Fatal Fury: Legend of the Hungry Wolf (Battle Fighters Garou Densetsu), যা আমার বন্ধু মাহিনের সহযোগিতায় সংগ্রহ করি, এরপর আজফারের থেকে পাই Samurai X এর সবগুলো পর্ব। এরপর দেখা হয় সঞ্চয়ের (Shontrix) সাথে– যে ছিল লাজুক আর স্বল্পভাষী, শুভ্র’র (Shadownirvana) সাথে– যে শুধু আমাদের সাথে দেখা করার জন্য ঢাকায় এসে রাতে থাকার জায়গা না থাকায় পর পর তিনটি রাত ধানমন্ডি ৭ এর মসজিদে কাটিয়েছিল, আকিবের (Devil’s Luck) সাথে– যাকে দেখে যদিও মনে হয় সে খুব ভাবনাহীন, কিন্তু তার বন্ধুদের বিপদে সবার আগে সে এগিয়ে আসে, ওয়াসিও’র (Baba Faluza) সাথে– যে ছিল খুবই মিশুক আর হাসিমুখে কথা বলতে ভালোবাসত এবং তৌফিক ভাই (Bhadra Shinobi)– যিনি সবসময়ই এক উষ্ণ পারিবারিকতায় আমাদের ধরে রেখেছেন ভালোবেসে। আরো অনেক আনিমে-পাগল মানুষের সাথে পরিচিত হলাম, চমৎকার সব মানুষ! আজ এদের অনেকেই আমাদের সাথে আর নেই, হয়তো কথাও হয় না বহুদিন। কিন্তু তাদের সাথে কাটানো প্রতিটি মুহূর্তের স্মৃতি আমার হৃদয়ে গেঁথে আছে।

আমি, সঞ্চয়, শুভ্র আর আকিব মিলে টিমওটাকু শুরু করেছিলাম, এরপর এসে যোগ দিলো ওয়াসিও আর তৌফিক ভাই, ধীরে ধীরে আমাদের পরিবারটা বড় হতে থাকল। জন্ম নিল– মেইযসিটি। আমাদের তখন একটাই চিন্তা যে কিভাবে বাংলাদেশের আনিমে-অনুরাগীদের একসাথে করা যায়। এই উদ্দেশ্যে আমরা প্রথম আয়োজন করলাম বাংলাদেশের প্রথম আনিমে কনভেনশন, মেইযকন ২০১১ সালের ২৫শে ডিসেম্বরে। আমাদের প্রধান অতিথি হলেন বিশিষ্ট কার্টুনিস্ট আহসান হাবীব, তিনি আমাদের প্রেরণা দেন আরো সামনে এগিয়ে যাওয়ার। আমাদের দ্বিতীয় মেইযকন হয় ২০১৩ সালের ২৬ শে মার্চে, যেখানে আহসান হাবিব সহ উপস্থিত থাকেন কার্টুনিস্ট শাহরিয়ার খান। আমার আন্তরিক ধন্যবাদ– Jamil’s Comics & Collectibles (JCC) এর জামিল ভাইকে, Anifinity’র সাদাব, কমবেশি’র শামিম ভাই এবং Vernal Services এর কল্লোল ভাইকে যারা আমাদের এই মেইযকন হওয়ার ক্ষেত্রে সবসময় অবারিত সাহায্য করে এসেছেন।

যা না থাকলে আমার জীবনে এগুলো কিছুই হতো না তা হল– আমার পরিবার, যারা পাশে থাকায় আজ আমি এ পর্যন্ত আসতে পেরেছি। আমার বাবা আর মার কাছে আমি আজ অকুন্ঠ কৃতজ্ঞতা জানাই আমাকে অফুরান ভালোবাসার জন্য আর বিশ্বাস করার জন্য, যার কারণে আমি আজ মেইযসিটির মত আরেকটি পরিবারের সান্নিধ্য পেয়েছি।

মোহাম্মদ মঈনুল ইসলাম মন্টি
প্রতিষ্ঠাতা, টিমওটাকু/মেইযসিটি

২০১৪ সালে মেইযকন ৩ প্রকাশনার জন্য লিখিত।