TO-Nar-06-800px
Narrative

আনিমে দুনিয়ায়

 
 

ছোটবেলা থেকে (এবং এখনো) কার্টুন এবং অ্যানিমেশনের প্রতি আমার বেশ টান ছিল। খুব পছন্দের মধ্যে Looney Tunes, Tom and Jerry, The Powerpuff Girls, Superman, এবং Batman: The Animated Series উল্লেখযোগ্য। ১৯৯৯ সালে যখন কার্টুন নেটওয়ার্কে Dragon Ball Z দেখতাম তখন মাঝে মাঝে কিছু পর্ব কোন কারণে দেখতে না পারলে মনটা খারাপ হয়ে যেত। বাদ পড়া পর্বগুলো আবার দেখার জন্য ইন্টারনেটে খুঁজতে গিয়ে প্রথম “আনিমে” শব্দটার সাথে পরিচিত হলাম। পড়লাম, জানলাম, এবং শিখলাম আনিমে সম্পর্কে। পেয়ে গেলাম অনেক ফোরাম যেখানে আনিমে নিয়ে আলোচনা, বিতর্ক, স্বপ্ন দেখা হয়। আমিও এই আলোচনায় যোগ দিয়ে এই দুনিয়ার আরো ভিতরে চলে গেলাম। এক সময় আবিষ্কার করলাম এই দুনিয়াটাকে ভালোবাসতে শুরু করেছি। এই দুনিয়া সম্পর্কে খোঁজ করতে গিয়ে জানতে পারলাম আমার দেখা প্রথম আনিমে ছিল Robotech (Choujikuu Yousai Macross), যেটা তখনকার স্টার প্লাসে দেখানো হয়েছিল ১৯৯৪ সালে। সৌভাগ্যক্রমে Robotech আনিমেটা পুরোটাই দেখা হয়েছিলো টেলিভিশনে।

আনিমে ফোরামগুলো ছিল সব বিদেশি, এই দুনিয়া নিয়ে কথা বলার জন্য স্বদেশী কারো সাথে পরিচয় ছিল না । এই রকম চলতে চলতে একদিন ফোরামে ম্যাসেজ পেলাম, কোন একজন জানতে চাচ্ছে আমি বাংলাদেশী কিনা? আমার খুশি আর প্রতীক্ষা তখন অন্য পর্যায়ে! আমরা ফোন নম্বর আদান-প্রদান করলাম। অবশেষে সামনাসামনি বসে আনিমে নিয়ে কথা বলার অদ্ভুত রকমের সুন্দর অনুভূতিটা পাবার অভিজ্ঞতা হল। আর তারপর এই রকম অভিজ্ঞতা বাড়ানোর প্রবল ইচ্ছা জেগে উঠল। আমার আনিমে দুনিয়ার প্রথম বন্ধু– ফয়সাল (themissingNiN), তার কাছ থেকে বাংলাদেশের প্রথম আনিমে কমিউনিটি– টিমওটাকু’র খোঁজ পেলাম এবং সাথে সাথে তাদের ফোরামে যোগ দিলাম। আমার মনের আকাঙ্ক্ষা পূরণ হতে আরম্ভ করল, এবং খেয়াল করে দেখলাম যে ফোরামের অন্যদের মনেও একই ভাবনা। কি অদ্ভুত মিল! আলাপ-আলোচনা চলতে চলতে আমাদের মনে থাকা ইচ্ছাটার পরিধি আরো বেড়ে গেলো– বাংলাদেশের আনাচে-কানাচে যেখানে যত আনিমে-ফ্যান আছে তাদেরকে সম্মিলিত করা, যেন আমরা আনিমে দুনিয়ায় নিজেদেরকে আর একা না মনে করি।

টিমওটাকু ফোরামটিকে আন্তর্জাতিকভাবে চালু করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হল। বাংলাদেশের প্রথম আনিমে বিষয়ক ওয়েবসাইট তৈরি করা হল। আমরা সবাই মিলে আমাদের নতুন একটা নাম দিলাম– মেইযসিটি। এরপর আমাদের একে অপরের মধ্যে সম্পর্কটা আরো গাঢ় হল যখন আমরা আনিমে এবং মাঙ্গা পরস্পরের সাথে ভাগাভাগি করে নেওয়ার জন্য এবং মুখোমুখি কথা বলার জন্য meeting শুরু করলাম। প্রতিটি আসরই অনেক সদস্যদের আগমনে সফলতার দেখা পেল। আসলে বাংলাদেশে দিনে দিনে আনিমে অনুসারীদের সংখ্যা বাড়ছিল। আমরা ফেইসবুকে আমাদের পেইজ খুললাম, গ্রুপও খোলা হল। খুব আশানুরূপ সাড়া পাওয়া গেল! আরো অনেক বাংলাদেশি আনিমে গ্রুপ ততদিনে জেগে উঠছিল। এতে খুব ভাল একটা ঘটনা হল– যারা আগে থেকেই আনিমের ফ্যান তারা একটা জায়গা পেল, বন্ধু পেল আনিমে নিয়ে কথা বলার জন্য; আর যারা সে দুনিয়াটা সম্বন্ধে জানে না, তাদের জানবার পথটা সহজ হয়ে গেল।

আমরা ধন্য এবং একইসাথে গর্বিত যে আমাদের বাংলাদেশে আনিমে ছড়িয়ে দেওয়ার যে স্বপ্ন তা অনেকাংশে পূর্ণ হয়েছে। বিশাল একটা ধন্যবাদ সবাইকে যারা এগিয়ে এসেছিল, আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছিল। বাংলাদেশে আজ মেইযসিটি ছড়িয়ে পড়েছে এবং বিদেশে যারা বাংলাদেশী আনিমে ফ্যান আছে তারাও আমাদের সাথে একত্রিত হতে শুরু করেছে। আমরা এভাবেই একদিন পুরো পৃথিবীজুড়ে পৌঁছে যাব আমাদের বন্ধুত্বের আহ্বান নিয়ে।

আবারো সবাইকে ধন্যবাদ।

তৌফিক জামাল
সহ-প্রতিষ্ঠাতা, টিমওটাকু/মেইযসিটি

২০১৪ সালে মেইযকন ৩ প্রকাশনার জন্য লিখিত।